Home / life Style / বিজনেসম্যানদের মানুষের মাইন্ড নিয়া রিসার্চ

বিজনেসম্যানদের মানুষের মাইন্ড নিয়া রিসার্চ

মানুষের মাইন্ড নিয়া রিসার্চ করে বড় বিজনেসম্যানরা । ভাল ব্যবসায়ীরা ভাল কিছু করে, খারাপরা খারাপটাকে ব্যাবহার করে । মানুষের ইমোশন কিসে বেশি হয়, বা মানুষের আকর্ষিত হওয়ার কারণ কি এগুলা নিয়া ওরা ঘাটে । ওদের কাছে বিজনেস আর টাকাটাই মেইন ।

যেমন ইংলিশ ফিল্ম যদি দেখেন, পুরা ফিল্মটাতে আপনে কিছু বাজে সেক্সুয়াল সিন পাবেনই । এটাও তাদের বিজনেস পলিছি, বেশি দর্শক পাবার কৌশল । কারণ পরিচালক জানে, ১টা সিন ফিল্মটাকে ১০ গুণ বেশি ইনকাম এনে দিবে । আবার ইরানি ফিল্ম দেখেন কোন বাজে সিন পাবেন না । ইংলিশও অনেক ফিল্ম আছে বাজে সিন ছাড়া । ইন্ডিয়ান সিরিয়ালগুলাও বড় ধরণের বিজেসস করতেছে । কারণ ওরা জানে, নায়িকাদের পোশাক বিক্রি ওদের মূল উদ্দেশ্য । এর জন্য তারা ডিরেক্টরদেরকে অনেক টাকা দিয়ে সপন্সর করে ।

আসলে এইরকম স্পন্সর হাজার হাজার । কিছু উদ্দেশ্য ভাল, কিছু খারাপ । এই সময়ে সবচেয়ে বেশি বিজনেজ করছে মানুষের কাম প্রবৃত্তিকে কাজে লাগিয়ে । তারা মিলিয়ন ডলার আয় করতেছে । একটা বডি স্প্রে এর অ্যাড দিবে সেখানেও প্রবৃত্তিকে কাজে লাগাচ্ছে । সুন্দর কোন
ছেলে, মেয়ে, বা খেলোয়াড়দেরকে কাজে লাগাচ্ছে । কারণ ওরা রিসারর্চ করে জানে পাবলিক এর মন কোন দিকে বেশি ঝুঁকে ।

ধর্মীয় দৃষ্টিতে মানুষের মন স্বাভাবিক এবং সৃষ্টিগতভাবে মন্দকর্ম প্রবন । অর্থাৎ মন্দ দিকে আমাদের মন বেশি টানে । আর সেটাই কাজে লাগিয়ে কোম্পানিগুলা মিলিয়ন ডলারের বিজনেসস করতেছে । পর্ণ ইন্ডাস্ট্রি লিগাল ইউরোপিয়ান কান্ট্রিতে । একটা বড় অংকের অ্যামাউন্ট এই
খাত থেকে আসে ওদের ।

একবার ইকনোমিক স্যার ক্লাসে বলছিলেন, এখনকার মানুষ ল্যাপটপের দামে মোবাইল কিনে :p । উনি বুঝাতে চাইছেন, কিছু দিন পর পর যে মোবাইলের নতুন আপডেট ভার্সন বের হয়, ওইটাও বিজনেস পলিছি । ওরা পাবলিকদের এমনভাবে এট্রাকশন করে রাখে যে ওরা
নতুন ফোন কিনতে বাধ্য হয় । কারণ ওরা রিসারর্চ করে মানুষের মাইন্ড রিড করে ফেলে । ঐ অনুযায়ী ওদের বিজনেসটাকে সামনে বাড়ায় । আমার Iphone X, আমার j7. এই প্রতিযোগী আমরা যে করি সেটা জেনেই ওরা নিউ ফোন বাজারে বের করে ।

সব বিজনেস ম্যানরা খারাপ হয় না। তবে বড় বড় কোম্পানিদের কারণেই সমাজ এফেক্টেড হয় । national geography ব্যাংক ডাকাতি দেখাইছিল, আরও কিছু মার্ডারারদের ডকুমেন্টারীও দেখাইছিল । এদের ম্যাক্সিমামরের অপরাধ বোধ সৃষ্টি হওয়ার মূল কারণ
ছিল “ফিল্ম” ।

এখন ইন্টারনেট হাতে হাতে । ভার্চুয়াল জগতে ভাল খারাপ ২টাই আছে । বেছে নেয়ার দায়িত্বটা থাকে ইউজাররের উপর । পরিবার থেকে যদি ধর্মীয় শিক্ষা না পায়, ভাল দিকটা বেছে নেয়ার percentage % হবে খুবই কম ।

[ বেশি দিম খেলে ব্রেইন স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে, আবার প্রচার করা হইসে ডিম খেলে ব্রেইন স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে । অল আবওট বিজনেস । :p ]

About Dipu Hasan

Check Also

landing_page

স্মার্ট ল্যান্ডিং পেইজ গুলো যেভাবে গ্রাহকদের আকর্ষণ করে

অনলাইন ব্যবসা গুলোতে ল্যান্ডিং পেইজ একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আপনি মনে করতে পারেন এটি ...